Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

উপজেলা প্রকল্প

বাস্তবায়নকর্মকর্তা

মনত্রণালয় হতে মোট বরাদ্দ ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তরকে প্রদান করা হয়। ত্রাণ ও পুনর্বাসন তা জেলা প্রশাসক বরাবর বরাদ্দ প্রদান করে। জেলা প্রশাসক তা উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের/ উপজেলা চেয়ারম্যান এবং তা ইউপির মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হয়।

উপজেলা প্রকল্প

বাস্তবায়নকর্মকর্তা

মন্ত্রণালয় হতে ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তরকে বরাদ্দ প্রদান। ত্রাণ ও পুনর্বাসন অধিদপ্তর তা জেলা প্রশাসককে। জেলা প্রশাসক প্রদান করে তা উপজেলা নির্বাহী অফিসার/ উপজেলা চেয়ারম্যানকে এবং ইউপি প্রকল্প গ্রহণ করে উপজেলা কমিটিতে প্রেরণ করে। জেলা কমিটির অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয় জেলা প্রশাসক বরাবর। জেলা কর্ণধার কমিটির অনুমোদনের পর জিও আকারে তা উপজেলা কমিটির নিকট প্রেরণ করা হয়। উপজেলা কমিটি ইউনিয়ন কমিটির মাধ্যমে কাবিখা প্রকল্প বাস্তবায়ন করে থাকে। 

 (ক) উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস (১) কাজের বিনিময়ে খাদ্য (২) কাজের বিনিময়ে টাকা (৩) টেষ্ট রিলিফ (৪) অতি দরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসূচী (৫) ভিজিএফ কর্মসূচীর মত  বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচীর বাস্তবায়ন করে থাকে।(৬) এছাড়া দুর্যোগ পরবর্তী সার্বিক ত্রাণ কর্মসূচীর যাবতীয় কাজ করে থাকে।তাছাড়া গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে বিশেষ বিশেষ সময় ত্রান সামগ্রী শীতবস্ত্র ,ঢেউটিন বিতরণ করে থাকে।

           উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচী ও ত্রাণ কর্মসূচীর পাশাপাশি উন্নয়ন মূলক কাজ হিসাবে গ্রামীণ রাস্তায় ১০ মিটার দৈর্ঘ্য পর্যন্ত সেতু নির্মাণ , সাইক্লোন সেন্টার ,বন্যাশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ ,মাটির কিলা নির্মাণ ও উপকূলীয় অঞ্চলে দূর্যোগে  ক্ষতিগ্রস্থদের ঘর নির্মাণ, জলবায়ু পরিবর্তনের বিশেষ ফান্ডের আওতায় গৃহ নির্মাণ করে থাকে।

           উপজেলা পর্যায়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সবচেয়ে কম জনবল নিয়ে সর্বোচ্চ পরিমাণ  কাজ বাস্তবায়ন করে থাকে।উপজেলা অফিসে কর্মরত একজন কর্মকর্তা ও একজন অফিস সহকারী প্রতিবছর গড়ে তিন থেকে ছয় কোটি ( উপজেলা ভেদে কমবেশী ) টাকার সামাজিক নিরাপত্তা , উন্নয়ন মূলক ও ত্রাণ কার্যক্রম করে থাকে।